1. webprominhaz@gmail.com : Admin :
  2. Aktar@gmail.com : AKTAR hosen : AKTAR hosen
  3. amirbinsultan95@gmail.com : Amirbin Sultan : Amirbin Sultan
বিজ্ঞপ্তি :
  • পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
শিরোনাম :
কক্সবাজার জেলার কবি মুহাম্মদ নূরুল হুদা বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক মনোনীত হলেন পুসাহ’র উপদেষ্টা কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত | দৈনিক জাগ্রত বিবেক ঢাকাস্থ বরুড়া উপজেলা জনকল্যাণ সমিতির ১ লাখ টাকা অনুদান তাকওয়া ফাউন্ডেশন বরুড়া উপজেলা শাখার লাশ দাফন টিম ২ এর ৩৫ তম গোসল কাফন জানাজা দাফন সম্পন্ন। আত্মপরিচয় ও আমাদের হীনমন্যতা | মুহাম্মদ রমিজ উদ্দীন টর্নেডো ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে খাদ্য ও নগদ অর্থ সহায়তা ওরাই আপনজন সংগঠন | দৈনিক জাগ্রত বিবেক সমাজ সংস্কার-৩য় পর্ব | আব্দুল আজিজ অপসংস্কৃতি রোধে চাই সম্মিলিত প্রয়াস: মুহাম্মদ আলতাফ হোসেন | জাগ্রত বিবেক কী পড়বো? তোফায়েল গাজালি | জাগ্রত বিবেক কৃতিত্বের মানদণ্ডে শেখা না কি শেখানো: রমিজ উদ্দিন

মুসলিম বিশ্বের অনৈক্যের ফসল ইসরায়েল | দৈনিক জাগ্রত বিবেক

  • আপডেট টাইম : Friday, May 14, 2021
  • 97 বার পড়া হয়েছে

ফিলিস্তিন ইস্যু তে কথা বলতে চাইলেও বলতে পারিনা৷ হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হয়। কলিজা পুড়ে ছারখার হয়ে যাচ্ছে। চোখের সামনে আমার মুসলমান ভাই, বোনদের কে অত্যাচার করতেছে, নির্যাতন করতেছে,পাখির মতো গুলি করে মেরে ফেলতেছে। আমরা নিশ্চুপ! আর প্রতিবাদ করতেও আর ভালো লাগেনা। প্রতিবাদ তো করেই আসছি, কোনো লাভ হচ্ছেনা। জানি আমার কলমের কালি তে কিছু শব্দবোমা ওই অত্যাচারীদের কিছুই করতে পারবেনা। আমি শুধু কাঁদতে পারি, আমি শুধু আল্লাহর কাছে বিচার দিতে পারি, আমি শুধু আসমানের দিকে চেয়ে থাকি ফায়সালা দেখার জন্য।নবী করীম (সাঃ) বিদায় হজ্বের ভাসনে বলে গিয়েছিলেন, মুসলমান একে অপরের ভাই, তোমরা ভ্রাতৃত্বের বন্ধনে আবদ্ধ থাকবে৷ রাসূল তো ভবিষ্যৎ বুঝেই সতর্ক করে গিয়েছিলেন। আমরা রাসূলের উম্মত রাসূলের সেই উপদেশ মানিনি৷ আজ আমার এক ভাই কে আঘাত করা হয় অপর ভাই চোখবুজে দেখেও না দেখার, শুনেও না শোনার ভান করে চলে যায়। কারণ আমরা যে প্রতিবাদ করার শক্তি হারিয়ে ফেলেছি, আমরা যে ঈমাণী শক্তি ক্ষয় করে ফেলেছি। আজ আমরা জিহাদের অর্থ ভুলে গিয়েছি। পশ্চিমাদের ভুল ব্যাখার অনুসারী হয়েছি। আজ আমরা মুসলিম বিশ্ব নেতৃত্ব শূণ্য হয়ে পড়েছি। জালিমের কাছে আজ আমরা মার খাচ্ছি৷ তাই বলে কি আমরা অসহায়??? আমরা মোটেও অসহায় নই, আমরা মোটেও বিচলিত নই, আমরা মোটেও ভেঙে যাইনি। আরে আমরা তো বদরের উত্তরসুরী, আমরা তো ওমরের উত্তরসুরী, আমরা সুলতান সালাউদ্দিন এর উত্তরসুরী৷ আমাদের ইতিহাস খুলে দেখ, আমরা অস্ত্র ছাড়া যোদ্ধা। আমাদের সাথে তো মহাপরাক্রমশালী আল্লাহ রয়েছেন৷ যিনি সমগ্র পৃথিবীর শাষক নমরুদ কে ঘায়েল করেছিলেন একটি নেংরা মশা দিয়ে, বাদশা ফেরাউন কে নীল নদে ডুবিয়ে মেরে শুটকি বানিয়ে মিশরের জাদুঘরে রেখেছেন, বাদশা আব্রাহাম কে ছোটো আবাবিল পাখি দিয়ে মেরেছিলেন৷ আল্লাহর তো কোনো অস্ত্র লাগেনা৷ তোরা যদি ইতিহাস থেকে শিক্ষা না নিস তাহলে পরিণাম ভোগ করার জন্য অপেক্ষা কর।
আজ যেহেতু কথা বলছি দুটি কথা বলে যাই৷ এক সপ্তাহ যাবৎ জেরুজালেমে নিরীহ মুসলমানদের উপর যে অত্যাচার করা হচ্ছে, হত্যা করা হচ্ছে, সেখানে কোনো মানবাধিকার সংগঠন মানবাধিকার লঙ্ঘনের কথা বলছেনা, জাতিসংঘ শান্তি শৃঙ্খলা বিনষ্টের আওয়াজ তুলছেনা, আজ কেউ জঙ্গি বলে আখ্যায়িত করছেনা কিন্তু আজ যদি অস্ত্রের জবাব অস্ত্র দিয়ে ফিলিস্তিনবাসী দিতো তাহলে তাদের দেশে আল কায়েদার গন্ধ পেতো পশ্চিমাগোষ্ঠী। মুসলমান অস্ত্র নিলে জঙ্গি, তারা অস্ত্র নিলে হয় সঙ্গী। এগুলো সবই মুসলমানদের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র। সবাই এক মুসলমানদের বিরুদ্ধে। এসবই তামাশা। কিন্তু আফসোসের বিষয়, বড় পরিতাপের বিষয়, বড় লজ্জার বিষয়, মুসলীম প্রধান রাষ্ট্র গুলো আজও শিয়া সুন্নী দ্বন্দ্বে, তারা মাজহাব লা-মাজহাব দ্বন্দ্বে৷ নিজেরা নিজেদের কে প্রতিপক্ষ বানিয়ে রেখেছে। আর এরই সুযোগ নিয়ে ইহুদি খ্রিস্টান মুসলমান হত্যার মিশনে নেমেছে৷ আজ পশ্চিমাদের সবচেয়ে বড় দালাল হয়েছে সৌদি। অথচ তাদের আজ মুসলিম বিশ্বের অভিভাবক হওয়ার কথা ছিলো। কিন্তু ঘরের শত্রু বিভীষণ৷ আজ মুসলিম বিশ্বের ঐক্যের অভাবে আমরা মার খাচ্ছি৷ হয়তো আপনি ভাবছেন, মার খাচ্ছে ফিলিস্তিন আমাদের কি?? তবে আপনিও অপেক্ষা করুন, আপনার জন্য একই দৃশ্য অপেক্ষা করছে।
এখনো সময় ফুরিয়ে যায়নি৷ মুসলমান এক হও৷ ছিনা উঁচু করে দাঁড়াও। তোমরা বাঘের বাচ্চা, শেয়াল নয়৷ এখনো যদি ঈমানের শক্তিতে ভেদাভেদ ভুলে এক হয়ে নারায়ে তাকবির স্লোগান দিতে পারো তোমাদের স্লোগানের শব্দে ইহুদী, নাসারা পালিয়ে যাবে৷ আল্লাহ আপনি আমাদের সহায় হউন৷ ফিলিস্তিন বাসীকে হেফাজত করুন৷ জালিম কে ধংস করে দিন৷ আমাদের কে ঈমাণ দান করুন৷ আমিন

 

লেখক কলামিস্ট Shibly Mahadi

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Amir Hossen
Customized BY NewsTheme